অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা

আজ আমি শেয়ার করবো, অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা। প্রেমে পড়লে সবাই কবি। আমরা যদি ভালোবাসা তৈরি করি তবে যেন আমাদের মধ্যে কাব্যিক অনুভূতি বাড়ে। তবে যারা কবিদের কথা ভাবেন কিন্তু তালের অভাব? তারা কি করবেন? তারা কি তাদের প্রেমিক এবং বান্ধবীদের কাছে কবিতা পাঠাবে না? একদমই না. যারা প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন তাদের জন্য রয়েছে ত্রিশজন বিখ্যাত বাঙলা প্রেমের কবিতা। এই সমস্ত কবিতা তার প্রেমিক বা বান্ধবীকে পাঠাতে তাকে অবশ্যই খুশি হতে হবে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অসম্ভব সুন্দর প্রেমের কবিতা : 

দানরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর  

কাঁকন-জোড়া এনে দিলেম যবে,
     ভেবেছিলেম, হয়তো খুশি হবে।
তুলে তুমি নিলে হাতের ‘পরে,
ঘুরিয়ে তুমি দেখলে ক্ষণেক-তরে,
পরেছিলে হয়তো গিয়ে ঘরে –
     হয়তো বা তা রেখেছিলে খুলে।
এলে যেদিন বিদায় নেবার রাতে
কাঁকনদুটি দেখি নাই তো হাতে,
          হয়তো এলে ভুলে।।

     দেয় যে জনা কী দশা পায় তাকে,
     দেওয়ার কথা কেনই মনে রাখে!
পাকা যে ফল পড়ল মাটির টানে
শাখা আবার চায় কি তাহার পানে।
বাতাসেতে-উড়িয়ে-দেওয়া গানে
     তারে কি আর স্মরণ করে পাখি?
দিতে যারা জানে এ সংসারে
এমন ক’রেই তারা দিতে পারে
          কিছু না রয় বাকি।।

     নিতে যারা জানে তারাই জানে,
     বোঝে তারা মূল্যটি কোনখানে।
তারাই জানে, বুকের রত্নহারে
সেই মণিটি কজন দিতে পারে
হৃদয় দিতে দেখিতে হয় যারে –
     যে পায় তারে সে পায় অবহেলে।
পাওয়ার মতন পাওয়া যারে কহে
সহজ ব’লেই সহজ তাহা নহে,
          দৈবে তারে মেলে।।

     ভাবি যখন ভেবে না পাই তবে
     দেবার মতো কী আছে এই ভবে।
কোন্ খনিতে কোন্ ধনভান্ডারে,
সাগর-তলে কিম্বা সাগর-পারে,
যক্ষরাজের লক্ষমণির হারে
     যা আছে তা কিছুই তো নয় প্রিয়ে!
তাই তো বলি যা-কিছু মোর দান
গ্রহণ করেই করবে মূল্যবান
          আপন হৃদয় দিয়ে।।

আরও পড়ুন:   গোধূলি নিয়ে কবিতা

মানসীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর  

শুধু বিধাতার সৃষ্টি নহ তুমি নারী!
পুরুষ গড়েছে তোরে সৌন্দর্য সঞ্চারি
আপন অন্তর হতে। বসি কবিগণ
সোনার উপমাসূত্রে বুনিছে বসন।
সঁপিয়া তোমার ‘পরে নূতন মহিমা
অমর করেছে শিল্পী তোমার প্রতিমা।
কত বর্ণ, কত গন্ধ, ভূষণ কত-না –
সিন্ধু হতে মুক্তা আসে, খনি হতে সোনা,
বসন্তের বন হতে আসে পুষ্পভার,
চরণ রাঙাতে কীট দেয় প্রাণ তার।
লজ্জা দিয়ে, সজ্জা দিয়ে, দিয়ে আবরণ,
তোমারে দুর্লভ করি করেছে গোপন।
পড়েছে তমার ‘পরে প্রদীপ্ত বাসনা –
অর্ধেক মানবী তুমি, অর্ধেক কল্পনা।।

Leave a Comment