জন্মদিনের কবিতা সমগ্র

আজ আমি শেয়ার করবো জন্মদিনের কবিতা সমগ্র। জন্মদিন হ’ল ক্যালেন্ডার অনুসারে কোনও ব্যক্তির জন্মের দিন। সাধারণত কারও জন্মদিন জন্মবার্ষিকীতে একটি উদযাপনের মাধ্যমে উদযাপিত হয়। এই দিনটি সাধারণত সন্তানের পক্ষে তার বাবা-মা, আত্মীয়স্বজন বা ব্যক্তিগণ বছরের একটি নির্দিষ্ট মাসে নির্দিষ্ট তারিখে উদযাপিত হয়।

অর্থাত, বছরের কোনও নির্দিষ্ট দিনে জন্মগ্রহণকারী শিশু বা কোনও ব্যক্তির জন্মের আনন্দ উদযাপনকে জন্মদিন বলা হয়। প্রোগ্রামটি সাধারণত শিশুদের কেন্দ্র করে হয়। তদুপরি, বিশ্বজুড়ে কিশোর-কিশোরী, যুবক-যুবতী এবং পুরুষদের জন্মদিন উদযাপন করতে দেখা যায়। আনুষ্ঠানিক উদযাপন ছাড়াও, জন্মদিন উদযাপনের প্রধান উপায় হ’ল শুভেচ্ছা।

মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন লোকেরা সংবেদনশীল জাতি হিসাবে চিহ্নিত হয়। মূলত, মাতৃগর্ভ থেকে জন্ম নেওয়া সন্তানের এক বছরের বার্ষিকীতে জন্মদিনগুলি গ্র্যান্ড স্টাইলে উদযাপিত হয়েছিল। এর উদ্দেশ্যগুলির মধ্যে একটি হ’ল শিশু বা ব্যক্তিকে তাদের জন্মদিনের গুরুত্বের সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়া, তাদের সামাজিক প্রেক্ষাপটে সনাক্ত করা এবং লোকদের আরও ভালভাবে পরিচিত করা। বা জন্ম সন্তানের সন্তানের সন্তুষ্টি এবং পিতৃস্নেহের স্নেহের ধন হিসাবে আনন্দিত করতে উদযাপিত হয়।

কখনও কখনও বেসরকারী খাতে, জন্মদিনগুলি কোনও সংস্থার উত্স তারিখকে কেন্দ্র করে পরবর্তী বছরগুলিতে একটি নির্দিষ্ট তারিখে সাজানো হয়। সেদিন সংগঠনের পরিবেশ খুব মনোরম ও প্রফুল্ল। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা ও আনন্দ দেখা দিয়েছে। যখন কোনও ব্যক্তির বয়স মাসের নির্দিষ্ট তারিখ এবং বছর একই সাথে হয়, তখন এটি একটি জন্মদিন বা ভাগ্যবান জন্মদিন, শ্যাম্পেনের দিন বা তারার জন্মদিন বলে।

মোমবাতি, বেলুন এবং কেক দীর্ঘদিন ধরে জন্মদিনের জন্য প্রয়োজনীয় আইটেম হিসাবে বিবেচিত হয়ে আসছে। অর্ডার দেওয়ার জন্য তৈরি কেকগুলি সাধারণ মানুষের নাম রাখে এবং তাদের চারপাশে বা তার ভিতরে মোমবাতির সংখ্যা বয়স অনুসারে নির্ধারিত হয়। এছাড়াও মিষ্টি, বিস্কুট, কলা, চা-কফি-সফট ড্রিঙ্কস, দই ইত্যাদির ব্যবস্থা করা হয়। মোমবাতিতে শিখা জ্বালানোর পরে জন্মদিন শুরু হয় ছুরি দিয়ে কেক কেটে বাচ্চা বা ব্যক্তির মুখে পরে, বাকি কেক কেটে টুকরো টুকরো করে আমন্ত্রিত অতিথিদের দেওয়া হয়।

গুরুত্ব অনুসারে, আমন্ত্রিত অতিথিকে পূর্ব-ব্যবস্থাযুক্ত জন্মদিনের কার্ডের মাধ্যমে অবহিত করা হয়। কার্ডে কয়টি জন্মদিন, কখন, বিনোদন, বাবা-মা, আত্মীয়স্বজন এবং শিশু বা ব্যক্তি রয়েছে তার চিত্র রয়েছে। এছাড়াও, দৈনিক পত্রিকার বিজ্ঞাপন বিভাগে, শিশু বা ছবিতে দীর্ঘজীবী হওয়ার জন্য ছড়া বা শুভেচ্ছা লেখা হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, প্রতিবেশীদের কেবল জন্মদিনের পার্টিতে মৌখিকভাবে আমন্ত্রিত করা হয়।

নতুন পোশাক পরা বাচ্চা বা কোনও ব্যক্তির জন্য জন্মদিনের একটি বিশেষ উদযাপনে পরিণত হয়। এছাড়াও, আমন্ত্রিত বা আমন্ত্রিত ব্যক্তিরা তাদের নিজস্ব আরাম এবং স্বাদ পরেন। জন্মদিনের ব্যবস্থা পরিবার বা প্রাতিষ্ঠানিক আর্থিক সুস্থতার উপর নির্ভর করে। সাধারণত সচ্ছল পরিবারগুলি জন্মদিনের পার্টির আয়োজন করে। ফলস্বরূপ, এই দিনটিতে জন্মদিনের উদযাপনগুলি বেশ প্রাণবন্ত।

জনপ্রিয় সংগীত “হ্যাপি বার্থডে টু ইউ” জনপ্রিয় গান হিসাবে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও ভারতীয় বাংলা সংগীত হিসাবে “আপনার জন্মদিনে উপহার হিসাবে আমি আপনাকে আর কী দিতে পারি / বাংলায় ভালোবাসি না, হিন্দিতে ভালবাসি না”; “আজ জন্মদিন, গলা ছেড়ে দিন” বা “একটি অজানা বছর এসেছে”; বা বাংলাদেশে, বাংলায়, মাইলস ব্যান্ডের “আজ জনমদিন তোমার” এর মতো গানগুলি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। বাড়িতে এই গানগুলি বাজানো ছাড়াও, আজকাল অনেকেই রেডিও বা অন্যান্য মিডিয়ায় উপহার হিসাবে একে অপরকে শোনেন।

চলুন দেখে নেই আজকের জন্মদিনের কবিতা, ভালবাসার মানুষকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তা, ভালবাসার মানুষকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা, প্রেমিকার জন্মদিনের শুভেচ্ছা , প্রিয় মানুষকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা, বড় ভাইকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। শুভ জন্মদিনের এসএমএস কবিতা এবং কয়েকটি সুন্দর ছবি এবং শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা আমরা আজ লিখেছি। এখানে আপনি সুন্দর সুন্দর শুভ জন্মদিন এসএমএস এসএমএস কবিতা এবং ছবি পাবেন।

পড়ুন জন্মদিনের কবিতা সমগ্র:

সূর্যের মত উজ্জ্বল হও,
সাগরের মত হও চঞ্চল ।
আকাশের মত হও উদার,
আর ঢেউ এর মত উচ্ছল ।
শুভ জন্মদিন

সমুদ্রের ঢেউ ফুলের সুগন্ধ
আর রাতের তারারা- সবাই
জড়ো হয়েছে তোমাকে
একসাথে বলতে—
শুভ জন্মদিন

স্বপ্ন গুলো সত্যি হোক
সকল আশা পুরন হোক
দুঃখ গুলো দূরে যাক,
সুখে জীবনটা ভরে যাক ।
জীবনটা হোক ধন্য
শুভ কামনা তোমার জন্য ।
শুভ জন্মদিন

সুন্দর এই ভুবনে সুন্দরতম জীবন
হোক তোমার, পুরন হোক প্রতিটি
স্বপ্ন, প্রতিটি আশা, বেঁচে থাকো
হাজার বছর ।
শুভ জন্মদিন

সকাল থেকে সন্ধ্যা, তোমার জন্মদিন
হোক উজ্জ্বল, জন্মদিনের আন্তরিক
অভিনন্দন । শুভ জন্মদিন ।

শুভ শুভ শুভ দিন, আজ তোমার জন্মদিন,
মুখে তোমার দিপ্ত হাসি, ফুল ফুটেছে রাশি রাশি,
হাজার ফুলের মাঝে গোলাপ যেমন হাসে,
তেমন করে বন্ধু তোমার জীবন যেন–
সুখের সাগরে ভাসে ।
শুভ জন্মদিন


শুভ রজনী শুভ দিন,
সামনে আসছে তোমার জন্মদিন,
জন্মদিনে কি বা দেবো তোমায়,
এক তোড়া গোলাপ ফুল আর এক বুক
ভালোবাসা ছাড়া কিছুই নেই যে আমার ।
শুভ জন্মদিন

শুভ ক্ষন, শুভ দিন,
মনে রেখো চিরদিন,
কষ্ট গুলো দূরে রেখো,
স্বপ্ন গুলো পুরন করো,
নতুন ভালো স্বপ্ন দেখো,
আমার কথা মনে রেখো ।
শুভ জন্মদিন

রাত যায় দিন আসে,
মাস যায় বছর আসে,
সবাই থাকে সুদিনের আশায়,
আমি থাকি তোমার জন্মদিনের আশায় ।
শুভ জন্মদিন ।

বাইরে তাকিয়ে দেখো কি মনোরম পরিবেশ ।
তোমার জন্য সূর্য হাসছে, গাছেরা নাচছে,
পাখিরা গান গাইছে, কারন আমি সবাইকে
বলেছি শুভেচ্ছা জানাতে ।
শুভ জন্মদিন ।

ফুলে ফুলে ভরে যাক তোমার ভুবন,
রংধনুর মত সাত রঙ্গে রাঙ্গুক তোমার
জীবন । দুঃখ কষ্ট গুলো হারিয়ে যাক
দূর অজানার দেশে । তোমার জীবন
যেনো সুখের সাগরে ভাসে । এই
কামনা করি বিধাতার কাছে ।
শুভ জন্মদিন

নতুন সকাল নতুন দিন নতুন করে শুরু,
যা যেন কখনো হয় না শেষ । তোমার
এই জন্মদিনে রইলো অনেক শুভেচ্ছা ।
শুভ জন্মদিন

দিনের শেষে বলছি বটে শুভ জন্মদিন,
কিন্তু তোমার কথাই শুধু ভাবছি সারাদিন।
জন্মদিনের শুভেচ্ছা ।

দারুন দিনটায় জানাই অনেক অভিনন্দন
চলার পথে সৌভাগ্যবান থেকো, আগামি
জীবনটা আনন্দময় হোক, এই আশা করি ।
আজ দিনটা ভালোভাবে উপভোগ করো ।
শুভ জন্মদিন ।

আজ তোমার জন্মদিন ।
মুখে তোমার দিপ্ত হাসি,
 ফুল ফুটেছে রাশি রাশি ।
হাজার ফুলের মাঝে
গোলাপ যেমন হাসে,
তেমন করে বন্ধু তোমার জীবন
 যেন শুখের সাগরে ভাসে ।


আজ তোমার জন্মদিন,
জীবন হোক তোমার রঙিন ।
সুখ যেন না হয় বিলীন,
দুঃখ যেন না আসে কোন দিন ।


দিনের শেষে বলছি বটে শুভ জন্মদিন,
কিন্তু তোমার কথাই শুধু ভাবছি সারাদিন ।
** জন্মদিনের শুভেচ্ছা **


মিষ্টি আলোর ঝিকিমিকি সবুজ ঘাসে ঘাসে,
স্নিগ্ধ হওয়ায় দুলিয়ে মাথা ফুলের কলি হাসে ।
পাখির গানে পরিবেশে মায়াবি এক ধোঁয়া ,
পেয়েছে ওরা তোমার শুভ জন্মদিনের ছোঁয়া ।
“” শুভ জন্মদিন “”


আধার ভেঙ্গে সূর্য হাসে
বিশ্বভুবন আলোয় ভাসে ।
পাক-পাখালি ধরলো গান
নদীর বুকে ওই কলতান ।
তর তরিয়ে চললো তরী
মহাসাগর দেবো পাড়ি ।
তরু শাখায় লাগলো দোল
চল বন্ধু চল জলকে চল ।
খুশিতে মন তা ধিন ধিন
আজ যে তোমার জন্মদিন **

জন্মদিন, শুভ জন্মদিন ।
ফুলেরা ফুটেছে হাসি মুখে
বাড়ছে ভ্রমরের গুঞ্জন,
পাখিরাও গাইছে নতুন সুরে
জানাতে তোমায় অভিনন্দন ।
নদীতে বইছে খুশীর জোয়ার
বাতাসে সুভাশিত কলরব,
তোমাকে নিয়েই মাতামাতি আজ
তোমার জন্যই সব ।
জীবনে হও অনেক বড়
পৃথিবীকে করো ঋণী,
গাইবে সবাই তোমার জয়গান
রাখবে মনে চিরদিনি ।
জীবন হোক ছন্দময়
সপ্নগুলো রঙিন,
ভালোবাসায় ভরে উঠুক
তোমার জন্মদিন ।।
জন্মদিন শুভ জন্মদিন !!

জন্মদিনে কি বা দিবো তোমায় উপহার ?
বাংলায় নাও ভালোবাসা হিন্দিতে নাও পেয়ার ।
শুভ জন্মদিন ।

তোর জন্য ভালোবাসা , লক্ষ গোলাপ জুঁই,
হাজার লকের ভীরে আমার, থাকবি হৃদয়ে তুই ।
শুভ জন্মদিন

   গ্রীষ্মের ফুলগুলি, বর্ষার অঞ্জলি,
শরতের গীতালি, হেমন্তের মিতালী ।
শিতের পিঠা-ফুলি, বসন্তের ফুল-কলি ।
এমনি করে ভরে থাক,
তোমার জীবনের দিনগুলি ।
“””””””” শুভ জন্মদিন “””””””””

জন্মদিনে কি বা দেবো তোমায় উপহা্‌
বাংলায় নাও ভালোবাসা, হিন্দিতে নাও পেয়ার,
^^^^^^ শুভ জন্মদিন ^^^^^

তোর জন্যে ভালোবাসা, লক্ষ গোলাপ জুই ।
হাজার লোকের ভিড়ে আমার, থাকবি হৃদয়ে তুই ।
**** শুভ জন্মদিন *****

সুন্দর এই ভুবনে সুন্দরতম জীবন হোক তোমার,
পুরন হোক প্রতিটি স্বপ্ন, প্রতিটি আশা,
বেঁছে থাকো হাজার বছর ।
******* শুভ জন্মদিন *******

জন্মদিনের শুভেচ্ছা নিও, যদিও বিলম্বিত,
Birthday Treat পেতে বতস হব বার প্রিত ।
হ্যাপি বার্থডে

আজ বারোটায় একটু খানি,
কাটিয়ে ঘুমের রেষ,
চোখটি মেলে চেয়ে দেখো,
আরো একটি বছর শেষ ।
(((শুভ জন্মদিন)))

Leave a Comment